চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুরে কর সেবা উপলক্ষে সেরা করদাতা সম্মাননা ক্রেস্ট ও সনদপত্র বিতরণ

দেশের উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির জন্য সময়মতো ও সঠিক নিয়মে কর প্রদানের কোন বিকল্প নেই

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুরে সেরা করদাতা সম্মাননা ক্রেস্ট ও সনদপত্র বিতরণ-২০২১ প্রদান করা হয়েছে। ‘আমরা স্বাবলম্বী হবো, সকলে কর দেবো’ এ সেøাগানে গতকাল বুধবার সেরা করদাতা সম্মাননা ক্রেস্ট ও সনদপত্র বিতরণ করা হয়। কর আদায়ের পরিমাণ বাড়লে রাজস্ব খাত আরও গতিশীল হবে বলে মন্তব্য করে অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, দেশে করদাতার সংখ্যা যদি আরও বাড়ানো যায় তবে রাজস্ব খাতে আয় বাড়বে। সুখী-সমৃদ্ধিশীল দেশ গড়তে করের বিকল্প নেই। দেশের উন্নয়নের স্বার্থে সবাইকে কর দিতে হবে। জাতীয় অর্থনীতিতে রাজস্ব আহরণের অন্যতম উৎস হলো কর।

ক্রেস্ট নিচ্ছেন সহিদুল হক মোল্লা

বক্তারা আরও বলেন, দেশের উন্নয়নে আয়কর দাতাদের ভূমিকাকে ছোট করে দেখার সুযোগ নেই। উন্নয়নের সাথে করদাতাদের সম্পর্ক নিবিড়। দেশের উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির জন্য সময়মতো ও সঠিক নিয়মে কর প্রদানের কোন বিকল্প নেই। দেশের জাতীয় বাজেটের ৯০ শতাংশের যোগান দেয় দেশের মানুষ। দেশের সবাই ইতিবাচক মানসিকতা নিয়ে দেশের স্বার্থে ও আগামী প্রজন্মের কথা ভেবে কর দিলে দেশ সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে যাবে। জনগণকে কর প্রদানে উদ্বুদ্ধ করতে প্রতিবছর জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) দেশের সেরা করদাতাদের সম্মানিত করে আসছে।
চুয়াডাঙ্গায় মাসব্যাপী কর সেবা উপলক্ষে সেরা করদাতা সম্মাননা ক্রেস্ট ও সনদপত্র বিতরণ-২০২১ প্রদান করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় সার্কেল-৯ উপ-কর কমিশনার কার্যালয়ে এ সম্মাননা ও সনদপত্র প্রদান করা হয়। এবছর জেলায় সর্বোচ্চ ও দীর্ঘ সময় আয়কর প্রদানকারী হিসেবে জেলায় শীর্ষ করদাতা হয়েছেন একজন নারীসহ ৭ জন ব্যবসায়ী।
শীর্ষ করদাতা ব্যবসায়ীরা হলেন সাইফুন্নাহার আক্তার শাম্মী, সহিদুল হক মোল্লা, দিলীপ কুমার আগরওয়ালা, আনছার আলী, আশরাফুল হক, সবিতা আগরওয়ালা ও সৈয়দ ফরিদ আহম্মেদ। চুয়াডাঙ্গা উপ-কর কমিশনার কার্যালয়ের অতিরিক্ত সহকারী কর কমিশনার ইরানুর রহমানের সভাপতিত্বে সম্মাননা ও সনদপত্র প্রদান অনুষ্ঠানটি উচ্চমান সহকারী হেলাল উদ্দিন সঞ্চালনা করেন। এসময় জেলা আয়কর আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাড. মহ: শামসুজ্জোহা ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আকসিজুল ইসলাম রতন, চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি সরদার আল আমিন, চেম্বারের পরিচালক মঞ্জুরুল ইসলাম মালিক লার্জ, শীর্ষ করদাতা সহিদুল হক মোল্লা, আনছার আলী ও সৈয়দ ফরিদ আহম্মেদ বক্তব্য রাখেন। সভায় কর পরিদর্শক আতিকুর রহমান ও কম্পিউটার অপারেটর আরিফা খাতুনসহ করদাতারা উপস্থিত ছিলেন।
সভায় জানানো হয়, ২০২০-২০২১ অর্থবছরে চুয়াডাঙ্গা কর অঞ্চলে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিলো ৬৬ কোটি ৭২ লাখ টাকা। কর আদায় হয়েছে ৭৪ কোটি ৫২ লাখ টাকা। লক্ষ্যমাত্রা চেয়ে ৭ কোটি ৮০ লাখ টাকা বেশি রাজস্ব আদায় হয়েছে। চলতি অর্থবছরে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৭০ কোটি টাকা।
এসময় শীর্ষ করদাতা সহিদুল হক মোল্লা বলেন, ব্যবসায়ী হিসেবে ১৯৭৭ সাল থেকে আয়কর ফাইল চালু করেছি। কর প্রদান করে দেশকে এগিয়ে নেয়া সম্ভব। আমার যতোটুকু আয় হয়েছে, ততোটুকু দেয়ার চেষ্টা করেছি।
স্বাগত বক্ত্যেবে চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত সহাকারী কর কমিশনার ইরানুর রহমান বলেন, গত ১ নভেম্বর থেকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত মাসব্যাপী কর সেবা দেয়া হচ্ছে। একই সাথে শীর্ষ করদাতাদের সম্মাননা ক্রেস্ট ও সনদপত্র প্রদানের আয়োজন করা হয়েছে। যারা সেরা করদাতা হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন, তাদের অবদান অনেক বড়। কর প্রদানের মাধ্যমেই আমাদের জাতীয় রাজস্ব লক্স্যমাত্রা অর্জন হয়ে থাকে। রাজস্বের অক্সিজেন হলেন করদাতারা। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা গড়তে আপনারা যারা সেরা করদাতা তাদের অবদান রাষ্ট্র কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করছে। আপনাদের কাছে প্রত্যাশা কর প্রদানের এই ধারা অব্যাহত রেখে ভবিষ্যতেও দেশের উন্নয়নে আপনারা ভূমিকা রাখবেন বলে আশা করছি।
মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, মেহেরপুরের উপ-কর কমিশনার সার্কেল-২১ উদ্যোগে মেহেরপুরের সেরা ৭ জন করদাতাকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকালে মেহেরপুর উপ-কর কমিশনারের কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে ওই ৭ সেরা করদাতাকে সম্মাননা ক্রেস্ট ও সনদপত্র প্রদান করা হয়। মেহেরপুরের উপ-কর কমিশনার মোহাম্মদ ইরানুর রহমানের সভাপতিত্বে সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মেহেরপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাড. এসএম ইব্রাহীম শাহীন। পরে কর অঞ্চল খুলনার মেহেরপুর জেলার সেরা করাদতা হিসাবে অজয় সুরেকা, নাদিম ইকবাল, আব্দুস সামাদ বাবলু বিশ্বাস, গোলাম শহীদ, খালেদ মজিবুল ইসলাম খান, ডা. সম্পা দেবী সারদা, সোহেল রানাকে সম্মাননা ক্রেস্ট সনদপত্র ও ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। এ সময় অ্যাড. সরোয়ার হোসেন সহ কর কার্যালয়ের অন্যান্য কর্মকর্তাগণ সেখানে ¬উপস্থিত ছিলেন।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More