বাংলাদেশের মাটিতে কোনো জঙ্গি-সন্ত্রাসীদের স্থান হবে না

আলমডাঙ্গার কুমারী ইউনিয়ন ভূমি অফিস ও কুমারী প্রাইমারি স্কুল পরিদর্শনকালে জেলা প্রশাসক

আলমডাঙ্গা ব্যুরো: আলমডাঙ্গার কুমারী ইউনিয়ন ভূমি অফিস ও কুমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন করলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান। পরিদর্শনকালে তিনি ভূমি অফিস চত্বরে দুটি বৃক্ষ রোপণ করেন। ভূমি অফিস ও প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন শেষে ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, বাল্যবিয়ে, মাদক প্রতিরোধ, দুর্নীতি বিরোধী ও সার্বিক আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মতিবিনিময় সভায় মিলিত হন তিনি। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১২টার দিকে দিকে মতবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান বলেন, বাংলাদেশের মাটিতে কোনো জঙ্গি-সন্ত্রাসীদের স্থান হবে না। এর সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। আর যারা তরুণ সমাজকে বিভ্রান্ত করে বিপথে চালিত করছে, তাদের কেউ-ই বিচারের হাত থেকে রেহাই পাবে না। সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ, ইভটিজিং, বাল্যবিয়ে ও মাদকাসক্তের বিরুদ্ধে জনমত সৃষ্টি ও প্রতিরোধ গড়ে তুলতে সকলকেই এগিয়ে আসতে হবে। তিনি বলেন, আইনে বাল্যবিয়েকে অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হয়েছে। যেকোনো মূল্যে এটি প্রতিহত করতে হবে। বাল্যবিয়ে একটি মেয়ের বড় হওয়ার পথে সব থেকে বড় বাধা।

মতবিনিময় সভায় কুমারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু সাঈদ পিন্টুর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার রনি আলম নূর, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রেজুওয়ানা নাহিদ, উপজেলা সহকারী কমিশনার শাহিদুল আলম, কুমারী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মাহমুদুল কাউনাইন। সভায় ইউপি সদস্য মহাববুল ইসলামের উপস্থাপনায় উপস্থিত ছিলেন শরিফুল ইসলাম, আব্দুর রশিদ, আইনাল হক, দোলন, হিটু, ফেরদৌস, জাহানারা, নুপুর, রোকসানা, আশরাফুল, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও যুবসমাজ।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More