বৃষ্টির কারণে এবার চুয়াডাঙ্গায় কমেছে ভুট্টা আবাদ

আনোয়ার হোসেন: ভুট্টা অর্থকরী ফসল হওয়ায় চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছেন চুয়াডাঙ্গার কৃষকরা। সাম্প্রতিক বছরগুলোর ধারাবাহিকতায় এবার রেকর্ড চাষাবাদ হয়ে আসছে। দেশের সবগুলোর জেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি আবাদ হয়েছে এ জেলায়। তবে এবার গত বছরের তুলনায় চাষ কম হয়েছে। বৃষ্টির কারণে অনেকেই সময় মত ভুট্টা লাগাতে না পারায় আবাদ কম হয়েছে বলে জানিয়েছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।
সংশ্লিষ্টরা জানান, অন্য চাষিদের লাভবান হওয়ার কারণে অন্যরাও ঝুঁকছেন এ ফসল চাষে। কম ব্যয়ে বেশি উৎপাদনের পাশাপাশি লাভের বিষয়টিও অনেকটা নিশ্চিত থাকায় আবাদ বাড়ছে। যদিও প্রতি বছরেই সঠিক দাম পাওয়া নিয়ে কিছুটা আশঙ্কায় থাকেন তারা। আবহাওয়া অনুকূলে থাকালে চুয়াডাঙ্গায় ভুট্টা চাষের জন্য খুবই উপযোগী। বহুমুখী ব্যবহার ও অর্থনৈতিক দিক থেকে অধিক লাভজনক হওয়ায় ভুট্টা এখন এলাকার প্রধান অর্থকরী ফসল হয়ে দাঁড়িয়েছে।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, দেশের ৬৪ জেলার মধ্যে এবার চুয়াডাঙ্গায় ভুট্টার আবাদ সবচেয়ে বেশি হয়েছে। অল্প পুঁজিতে অধিক লাভবান হওয়ায় আগ্রহ দেখাচ্ছেন কৃষকরা। উন্নতজাত ব্যবহার করার কারণে ফলনও বেশি পাওয়া যায়। এ জেলায় গত বছর ভুট্টা চাষের লক্ষ্যমাত্রা ছিলো ৪৬ হাজার ৫৩০ হেক্টর। এবার ভুট্টা আবাদ হয়েছে ৪৪ হাজার ৫৩০ হেক্টর জমিতে। যা গত বছরের চেয়ে ২ হাজার হেক্টর কম।
চাষিরা জানান, এ ফসল চাষে খরচ যেমন কম, অন্যদিকে ফলন এবং লাভও বেশি। এ কারণে চাষিদের মাঝে ভুট্টা চাষে আগ্রহ দেখা দিয়েছে। তাছাড়া বাণিজ্যিকভাবে মৎস্য চাষ, লেয়ার ও ব্রয়লার মুরগির ফার্ম এবং গরু মোটা-তাজাকরণ প্রকল্পের জন্য ভুট্টার ব্যাপক চাহিদা রয়েছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।
চুয়াডাঙ্গা পৌরসভাধীন হাজরাহাটি গ্রামের চাষি হাবিবুর রহমান বলেন ১০-১২ বছর ধরে ভুট্টা আবাদ করছি। এবার তিনি ৫ বিঘা জমিতে ভুট্টা আবাদ করেছেন। তিনি বলেন এবার বীজ, সার ও সেচসহ ভুট্টা ঘরে তোলা পর্যন্ত ব্যয় হবে বিঘাপ্রতি আনুমানিক ১০ থেকে ১২ হাজার টাকা। গত বছরে এক লাখ ৫০ হাজার টাকার ভুট্টা বিক্রি করেছিলাম; এবার দাম নিয়ে শঙ্কায় আছি। চুয়াডাঙ্গা দীননাথপুর গ্রামের চাষি হারিজ চৌধুরী বলেন, গত বছরের তুলোনায় এবার ভুট্টা চাষ কম করেছি। বৃষ্টির কারণে ভুট্টা লাগাতে পারেনি। তারপরও এবার ৮ বিঘা ভুট্টা লাগিয়েছি। একই এলাকার চাষি ইসমাইল হোসেন বলেন গত বছরে ভুট্টা বিক্রি করেছিলাম ৭-৮শ টাকা মণ। এখন ভুট্টার বাজার ১৩শ টাকা মন চলছে, আমাদের ভুট্টা উঠতে উঠতে কতো দাম পাবো তা বলতে পারছি না। চাষি সামাদুল ইসলাম বালেন একবিঘা জমিতে ভুট্টা চাষ করতে খরচ হয় ১০-১২ হাজার টাকা উৎপাদন হয় ৩৫ থেকে ৪০ মন ভুট্টা একবিঘা জমির ভুট্টা বিক্রয় হয় ২৮ থেকে ৩০ হাজার টাকায় এবার অনেক চাষির ভুট্টা পানিতে নষ্ট হয়ে গেছে জমিতে পানি জমে থাকার কারণে অনেকেই ভুট্টা লাগাতে পারেনি। এবার ভুাট্টার দাম ভালো পাবে বলে মনে করছেন চাষি।
চুয়াডাঙ্গা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক ড. মো. আব্দুল মাজেদ জানান, চুয়াডাঙ্গায় এবার ভুট্টা আবাদ হয়েছে ৪৪ হাজার ৫৩০ হেক্টর জমিতে। এবার লক্ষ্যমাত্রা ছিলো ৪৬ হাজার ৫৩০ হেক্টর। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ১৪ হাজার ২৫০ হেক্টর, দামুড়হুদা উপজেলায় ১২ হাজার ৬৭০ হেক্টর, জীবননগর উপজেলায় ৫ হাজার ৩৫০ হেক্টর, আলমডাঙ্গা উপজেলায় ১২ হাজার ১৪০ হেক্টর, জমিতে ভুট্টা আবাদ করা হয়েছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More