মোবাইলফোন প্রতীকের নির্বাচনী অফিসে হামলা : প্রার্থীর অভিমত

স্টাফ রিপোর্টার: ‘মোবাইলফোন প্রতীকের বিজয় মানেই চুয়াডাঙ্গার বঞ্চিত নিপিড়িত মানুষের বিজয়। এ বিজয়কে নস্যাত করার জন্য হুমকি ধামকি দেয়া হচ্ছে। রাঙানো হচ্ছে চোখ। রাতে কয়েকজন যুবক এসে নির্বাচনী প্রধান কার্যালয়েও তছনছ করেছে। চুয়াডাঙ্গা পৌরবাসীকে আবারও সবিনয় অনুরোধ জানিয়ে বলবো, অন্যায়ের কাছে মাথা নত না করে ভোটকেন্দ্রে পৌঁছে বিবেকের বিবেচনায় পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করুন।’

চুয়াডাঙ্গা পৌর নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী মজিবুল হক মালিক মজুর ঝিনাইদহ বাসস্ট্যান্ডপাড়ার প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলার অভিযোগতুলে প্রার্থী উপস্থিত সাংবাদিকদের সামনে উপরোক্ত আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘চুয়াডাঙ্গা পৌরবাসী মোবাইলফোন প্রতীকে ভোট দেয়ার জন্য প্রস্তুত। বিষয়টি বুঝেই কয়েকদিন ধরে আমার এবং আমার কর্মী সমর্থক এবং ভোটারদের হুমকি ধামকি দেয়া হচ্ছে। নানা চক্রান্ত করা হচ্ছে। ওসবে আমি ভীতু নই। হামলা চালিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে অফিসে চেয়ার-টেবিলে এলোপাথাড়ি কোপ মারা হয়েছে। ভাংচুর করা হয়েছে মোটরসাইকেল। তছনছ করা হয়েছে অফিসে থাকা কাগজপত্রসহ মালামাল ও নির্বাচনী পোস্টার। এসব কীসের আলামত? সভ্য সমাজের বাসিন্দা আমরা। নির্বাচনে প্রার্থী হওয়া যেমন সাংবিধানিক অধিকার, তেমনই ভোটার সাধারণের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে তাদের জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত করার দায়িত্ব ভোটার সাধারণের। প্রতিবন্ধকতা সভ্য সমাজ আশা করে না। সমাজের দায়িত্ববান সকলের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে বলছি, আমি প্রার্থী হয়েছি, প্রার্থী আছি, শেষ পর্যন্ত মাঠে থাকবো। মৃত্যু না হওয়া পর্যন্ত আমি আছি। পৌরবাসীই আমার সাহস। পৌরবাসী ভোট দিয়ে তার প্রমাণ করবে ইনশাল্লাহ।

গতরাত অনুমানিক পৌনে ১০টার চুয়াডাঙ্গা ঝিনাইদহ বাসস্ট্যান্ডপাড়াস্থ মোবাইলফোনের নির্বাচনী অফিসে ১২-১৪ জনের একদল যুবক মোটরসাইকেল যোগে আকস্মিক হাজির হয়। তাদের কয়েকজন ধারালো অস্ত্র দিয়ে অফিসে এলোপাথাড়ি কোপ মারে। অফিসের সামনে থাকা ৩টি মোটরসাইকেলও কুপিয়ে ক্ষতিগ্রস্থ করা হয়। অফিসের মালামাল তছনছ করে ভীতি সঞ্চার করে সরে যায় হামলাকারীরা। এ খবর পেয়ে প্রার্থীসহ তার নির্বাচনী প্রচার প্রচারণায় নিয়োজিত অনেকেই ওই কার্যালয়ে পৌঁছুন। অভিযোগ পেয়ে সাংবাদিকদের অনেকেই ঘটনাস্থলে হাজির হন। এ সময় মজিবুল হক মালিক মজু হামলার বর্ণনা দিয়ে উপরোক্ত মন্তব্য করেন। বলেন, মাঠ পর্যায়ে কর্মীরাও বাধাগ্রস্থ হয়েছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More