স্বামীর মোটরসাইকেল থেকে পড়ে মারা গেলেন রোজিনা

জীবননগর ব্যুরো: ছোট ভাইয়ের সন্তান হওয়ায় মসজিদে মানত দিতে যাওয়ার পথে মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়ে নিহত গৃহবধূ রোজিনা খাতুনের (৩৫) মরদেহ বেদনাবিধুর পরিবেশে দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে। গতকাল শনিবার সকালে জীবননগর উপজেলার সুবলপুরে তাকে দাফন করা হয়। গত শুক্রবার চৌগাছায় একটি মসজিদে যাওয়ার পথে মহেশপুর-চৌগাছা সড়কের টেইঙ্গুরপুর নামক স্থানের একটি স্প্রীডব্রেকারে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
ঘটনার বিবরণে জানা যায়, জীবননগর উপজেলার সুবলপুর গ্রামের ওসমান গণি ম-লের ছেলে আব্দুস সাত্তার যশোরের চৌগাছা উপজেলার শহরের একজন কবিরাজের নিকট টুকটাক চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। সম্প্রতি তার স্ত্রী গর্ভবর্তী হন এবং একটি সন্তান প্রসব করেন। ওই কবিরাজ এ ঘটনায় একটি খাসি ছাগল মানত করতে বলেন। আব্দুস সাত্তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মানত শোধ দিতে শুক্রবার চৌগাছার ওই মসজিদের উদ্দেশ্যে রওনা দেন। ৪ ভাই ও তার স্ত্রীরা ইজিবাইকযোগে রওনা দিলেও অন্য ভাই শরিফুল ইসলাম ও তার স্ত্রী রোজিনা খাতুন যাচ্ছিলেন মোটরসাইকেলযোগে। তাদের মোটরসাইকেলটি মহেশপুর-চৌগাছা সড়কের টেইঙ্গুরপুর স্প্রিডব্রেকার পার হওয়ারকালে শরিফুল ইসলাম মোটরসাইকেলের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন। এসময় স্ত্রী রোজিনা খাতুন মোটরাসাইকেল থেকে ছিটকে রাস্তার ওপর পড়ে মারাত্মকভাবে আহত হন। তাকে উদ্ধার করে চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। এখানে তার অবস্থার উন্নতি না হলে তাকে যশোর কুইন্স হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। পরে তাকে যশোর সদর হাসপাতালে নেয়া হয় এবং সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু ঘটে। ৩ সন্তানেন জননী রোজিনা খাতুনকে গতকাল শনিবার বেলা ১১টার দিকে সুবলপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে নামাজে জানাজা শেষে তাকে বেদানবিধুর পরিবেশে সুবলপুর কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন করা হয় বলে জানা গেছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More