গাংনীতে চেয়ারম্যানকে তুলে নিয়ে জোরপূর্বক ত্রাণের তালিকায় স্বাক্ষর নিলেন আ.লীগ নেতা

প্রতীকি কার্টুন

গাংনী প্রতিনিধি: মেহেরপুর গাংনীর কাজিপুর ইউপি চেয়ারম্যান রাহাতুল্লাকে তুলে নিয়ে ত্রাণের ১ হাজার ২শ’ জনের তালিকায় স্বাক্ষর করিয়ে নিলেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুর রউফ স্বপন। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার কাজিপুরে এ ঘটনা ঘটে। এসময় ভিজিডির চাল ছিনিয়ে নেয়ার ঘটনাও ঘটে। আব্দুর রউফ স্বপন ধানখোলা ইউপির আড়পাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও কাজিপুর হালসানাপাড়ার বাসিন্দা।
কাজিপুর ইউপি চেয়ারম্যান রাহাতুল্লাহ জানান, কাজিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রউফ স্বপন ও বেতবাড়িয়া গ্রামের আলাইহীমসহ তাদের সহযোগিরা আমাকে কাজিপুর গোলাম বাজার থেকে ইউনিয়ন পরিষদে তুলে নিয়ে ত্রাণের ১ হাজার ২শ’ জনের তালিকায় জোরপূর্বক স্বাক্ষর করিয়ে নেন। সার্বিক ঘটনা উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে জানিয়েছি। তিনি আরও বলেন, আমি বৃদ্ধ মানুষ শেষ বয়সে আমাকে নিয়ে যা করলো আল্লাহই তার বিচার করবে।
ইউনিয়ন যুবলীগের সহসভাপতি ও কাজিপুর ইউপি সদস্য মো. খবির উদ্দীন জানান, দলীয় ভাগ নেয়ার নামে চেয়ারম্যানকে জিম্মি করে ১ হাজার ২শ’ জনের তালিকায় জোর করে লিখে নেয় ইউপি আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রউফ স্বপন ও তার লোকজন। বেতবাড়িয়া গ্রামের কথিত আওয়ামী লীগ কর্মী আলাইহীমের নেতৃত্বে একই গ্রামের হকাজ্জেলের ছেলে রাজু ভিজিডির ২ বস্তা চাল ছিনতাই করে নিয়ে যায়। পরে প্রশাসনিক চাপের মুখে চাল ফেরত দিতে আসলে তাকে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে আটকিয়ে রাখা হয়।
কাজিপুর ইউপি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান জানান, ইউপি আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রউফ স্বপন তার লোকজন নিয়ে এসে ইউপি চেয়ারম্যানের কাছ থেকে ১২শ’ জনের তালিকায় জোর করে লিখে নিয়েছে। এরপর তার সমর্থকরা জোর করে ভিজিডির ২ বস্তা চাল নিয়ে যায়। এছাড়া সে কাজিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কোনো নেতাকর্মীকে না নিয়ে একাই সব কাজ করে। তার ক্ষমতার দাপটে অসহায় হয়ে গেছে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।
কাজিপুর ইউপি সচিব আব্দুর রহমান জানান, করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে সরকার কাজিপুর ইউনিয়নে ৪ হাজার ১৪৮ জন কর্মহীন ও অসচ্ছল ব্যক্তিকে ১৫ কেজি করে ত্রাণের চাল দেবে। এ চাল প্রকৃত কর্মহীন ও অসচ্ছল ব্যক্তিরা যাতে পায় এজন্য সকলে বসে তালিকা প্রস্তুত করা কথা বলা হলে তারা অসৌজন্য মূলক আচরণ করে চাল ছিনতাই ও তালিকায় জোর করে স্বাক্ষর করে নেয়। ইউপি চেয়ারম্যান বৃদ্ধ মানুষ হওয়ার কারনে তাকে বারবার অপদস্থ করা হয়। এ বিষয়ে অভিযুক্ত আব্দুর রউফ স্বপনের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল দিলেও রিসিভ করেননি তিনি।
গাংনী থানার ওসি মো. ওবাইদুর রহমান জানান, ঘটনাটি জানতে পেরে পীরতলা পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই বাবুলকে কাজিপুর ইউনিয়ন পরিষদে পাঠানো হয়েছে। গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার সেলিম শাহনেওয়াজ বলেন, বিষয়টি ইউপি চেয়ারম্যান ও সচিব অবগত করলে সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More