জেএমআই থেকে সাড়ে ১০ কোটি সিরিঞ্জ কিনছে স্বাস্থ্য অধিদফতর

স্টাফ রিপোর্টার: করোনাভাইরাসের টিকা প্রয়োগের জন্য পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত জেএমআই সিরিঞ্জেস অ্যান্ড মেডিকেল ডিভাইসেস লিমিটেডকে তিন কোটি ৩০ লাখ পিস অটো ডিজেবল সিরিঞ্জের ক্রয়াদেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। পাশাপাশি সরকারের নিয়মিত টিকাদান কর্মসূচির (ইপিআই) জন্য সাত কোটি ১০ লাখ পিস সিরিঞ্জের ক্রয়াদেশ পেয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারি) অনুষ্ঠিত কোম্পানির ২২০তম পরিচালনা পর্ষদ সভায় এ বিষয়টি জানানো হয়। সভা শেষে সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে জেএমআই কর্তৃপক্ষ।

প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, করোনার টিকা দেয়ার জন্য ব্যবহৃত অটো ডিজেবল সিরিঞ্জ এক ধরনের বিশেষায়িত পণ্য, যা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পিকিউএস সনদ নিয়ে বিশ্বের অল্পসংখ্যক কোম্পানি উৎপাদন করে। করোনা মহামারির কারণে বিশ্বব্যাপী এ পণ্যটির সরবরাহ সংকট চলছে। দেশের একমাত্র অটো ডিজেবল (এডি) সিরিঞ্জ তৈরিকারক প্রতিষ্ঠান জেএমআই সিরিঞ্জেস অ্যান্ড মেডিকেল ডিভাইসেস লিমিটেড।

যুক্তরাষ্ট্রের দু’টি প্রতিষ্ঠান যথাক্রমে ২৩ কোটি ও ৩০ কোটি পিস বিভিন্ন ধরনের সিরিঞ্জ কেনার আগ্রহপত্র দিয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন আকারের এডি সিরিঞ্জ ২০২০ এবং ২০২১ সালে কোন মাসে কি পরিমাণ সরবরাহ করা সম্ভব তা জানতে চেয়ে জেএমআইকে চিঠি দিয়েছে শিশুদের অধিকার রক্ষায় কাজ করা জাতিসংঘের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ইউনিসেফ।

পরিচালনা পর্ষদ সভায় জানানো হয়, ২০১২ সাল থেকে জেএমআই সিরিঞ্জেস অ্যান্ড মেডিকেল ডিভাইসেস-এর রয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সনদ, যার মাধ্যমে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পণ্য রফতানি করতে পারে প্রতিষ্ঠানটি। এ বছরই করোনার টিকা কার্যক্রমে ব্যবহৃত এডি সিরিঞ্জ, ইউরোপের বিভিন্ন দেশে বাজারজাতের অনুমতির পূর্বশর্ত (সিই০০৬৮ সনদ) নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। বর্তমানে দিনে ১২ লাখ সিরিঞ্জ বানাতে পারে প্রতিষ্ঠানটি। সে হিসাবে মাসে তিন কোটি ৬০ লাখ পিস।

সভায় কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আব্দুর রাজ্জাক জানান, গত কয়েক বছরে নানা প্রতিকূলতার মধ্যেও কোম্পানির উৎপাদিত পণ্যের মান আন্তর্জাতিক পর্যায়ে প্রশংসিত হয়েছে। করোনার এই দুঃসময়ে একদিনের জন্যও কারখানা বন্ধ থাকেনি। আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্য সংস্থার নিয়ম মেনে শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করে উৎপাদন অব্যাহত রাখা হয়েছে। তিনি বলেন, গুণগত মানের পণ্য উৎপাদনের স্বীকৃতি আমরা এরই মধ্যে পাচ্ছি। ২০০৭ সাল থেকে সরকারের টিকাদান কর্মসূচিতে আমরা নিরবচ্ছিন্নভাবে সিরিঞ্জ সরবরাহ করে আসছি। যার ধারাবাহিকতায় সরকার করোনাভাইরাস প্রতিরোধক টিকাদান কর্মসূচিতে আমাদের ওপর আস্থা রেখেছে। এরই মধ্যে আমাদের তিন কোটি ৩০ লাখ সিরিঞ্জ সরবরাহের আদেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More