তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কথা ভুলে যান : ওটা এখন মিউজিয়ামে

ঝিনাইদহে আ.লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে মির্জা ফখরুলকে উদ্দেশ্য করে ওবায়দুল কাদের

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের উদ্দেশে বলেছেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কথা ভুলে যান। আদালতের নির্দেশে ওটা এখন মিউজিয়ামে। গতকাল রোববার ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বিএনপির নেতা-কর্মীদের সতর্ক করে বলেন, বিজয়ের মাসে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চাইবেন, সন্ত্রাসী কাজ করবেন, বাঁশের লাঠিতে জাতীয় পতাকা নিয়ে ঝামেলা করবেন, এটা আমরা হতে দেব না। আওয়ামী লীগ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে দেবে না। আওয়ামী লীগের এই নেতা অভিযোগ করেন, মির্জা ফখরুল টাকার বস্তার ওপর বসে আছেন। কারে এমপি বানাবেন, কারে মন্ত্রী করবেন, তার জন্যও টাকা। জাতীয় সরকার কারে করবেন, সেখানেও টাকা। শুরু হয়ে গেছে মনোনয়ন বাণিজ্য। দলীয় নেতাকর্মীদের মানুষের কল্যাণে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নেত্রী বলেছেন খরচ কমাতে, খরচ কমান। মানুষের কল্যাণে কাজ করেন। মানুষের পাশে দাঁড়ান। সম্মেলনকে কেন্দ্র করে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতাকর্মীদের ছবি সম্বলিত অসংখ্য বিলবোর্ডে ছেয়ে গেছে ঝিনাইদহ শহরের রাস্তাঘাট। এ বিষয়টি লক্ষ্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘নেতাদের একরকম দেখা যায়, বিলবোর্ডে আরেক রকম হয়ে যায়। এই সম্মেলনে এসে যে বিলবোর্ড দেখলাম, এত বিলবোর্ড আর কখনো দেখিনি। নেত্রী বলেছেন খরচ কমাতে, খরচ কমান। মানুষের কল্যাণে কাজ করেন। মানুষের পাশে দাঁড়ান।’ বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের প্রসঙ্গ টেনে সেতুমন্ত্রী বলেন, তিনি মুচলেকা দিয়ে বলেছেন আমি আর রাজনীতি করবো না। এই কথা বলে লন্ডনে পালিয়ে গেছেন। অর্থপাচার মামলায় তার সাত বছরের জেল হয়েছে। বিএনপি ক্ষমতায় গেলে তারেক রহমান নেতা হবেন। হারিয়ে যাওয়া হওয়া ভবন আবার ফিরে পেতে চান। বিএনপি আন্দোলন নিয়ে দিবাস্বপ্ন দেখছে। যা কখনো বাস্তবায়ন হবে না। ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, আগামী নির্বাচন ঘিরে বিএনপি এখনই দিবাস্বপ্ন দেখছে। তাদের সেই স্বপ্ন কখনো পূরণ হবে না। তাদের স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে যাবে। তারা আন্দোলনেও যেমন সফল হবে না। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ। ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সংসদ সদস্য আব্দুল হাইয়ের সভাপতিত্বে সম্মেলনে বক্তব্য দেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আমিরুল আলম, পারভিন জামান, গ্লোরিয়া সরকার, স্থানীয় সংসদ সদস্য শফিকুল আজম খান, আনোয়ারুল আজীম ও তাহজিব আলম সিদ্দিকি প্রমুখ। সমাবেশ পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম। সকাল থেকেই সম্মেলনস্থল ঝিনাইদহ পানি উন্নয়ন বোর্ড মাঠে নেতা-কর্মীরা আসতে শুরু করেন। বিভিন্ন উপজেলা ও আশপাশের এলাকা থেকে নেতা-কর্মীরা মিছিল নিয়ে আসতে শুরু করেন। সকাল ১০টার দিকে কিছু সময়ের জন্য হট্টগোল শুরু হয়। চেয়ার ছোড়াছুড়ি করেন কর্মীরা। সম্মেলনের প্রধান অতিথি ওবায়দুল কাদের দ্বিতীয় পর্বের শুরুতে জেলা কমিটি বিলুপ্তি ঘোষণা করেন। পরে তিনি বর্তমান সভাপতি সংসদ সদস্য আব্দুল হাইকে সভাপতি ও বর্তমান সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিমকে (মিন্টু) সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ঘোষণা করেন। দীর্ঘ সাত বছর পর গতকাল রোববার জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হলো। সর্বশেষ ২০১৫ সালের ২৫ মার্চ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। দীর্ঘদিন পর সম্মেলন ঘিরে নেতা-কর্মীদের মধ্যে উৎসবের আমেজ ছিল।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More