ধর্ষণ একটা পাশবিকতা : আর ধর্ষকরা পশু

মাথাভাঙ্গা ডেস্ক: ‘দুর্যোগ ঝুঁকিহ্রাসে সুশাসন, নিশ্চিত করবে টেকসই উন্নয়ন’ এ সেøাগানে চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুরসহ সারাদেশে আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস-২০২০ উদযাপন করা হয়েছে। আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস উদযাপন উপলক্ষে ডিজিটাল পদ্ধতিতে সারাদেশে নবনির্মিত ১৭ হাজার ৫টি দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহের শুভ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারাদেশে একযোগে নবনির্মিত দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ধর্ষণ একটা পাশবিকতা, আর ধর্ষকরা পশু। যার ফলে মেয়েরা আজকে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। সে জন্য আইন সংশোধন করে ধর্ষণের শাস্তি যাবজ্জীবনের সঙ্গে মৃত্যুদ-ের বিধান রেখে মন্ত্রিসভায় আইন পাস করা হয়েছে। একের পর এক যৌন নিপীড়নের ঘটনায় দেশজুড়ে প্রতিবাদ আর বিক্ষোভের মধ্যে ‘জরুরি’ বিবেচনায় আইনটি সংশোধন করা হয়। গতকাল মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রাকৃতিক দুর্যোগের পাশাপাশি মনুষ্যসৃষ্ট দুর্যোগও সরকারকে মোকাবেলা করতে হয় মন্তব্য করে বিএনপি-জামায়াত জোটের আন্দোলনে ‘অগ্নি সন্ত্রাসের’ ঘটনাগুলো তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, “জীবন্ত মানুষকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়েছিলো। সেটাও কিন্তু আমরা মোকাবেলা করেছি। পাশাপাশি এসিড নিক্ষেপ, সেটাকেও আমরা নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছি। সেখানে আমরা আইন সংশোধন করেছিলাম।” একই কারণে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন সংশোধন করার কথা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “ধর্ষণ মানে আমি বলবো, একটা মানুষ পশু হয়ে যায়। সেই জন্যই তাদের মধ্যে এ পাশবিকতা। তার ফলে আজকে আমাদের মেয়েরা ক্ষতিগ্রস্ত। সেই জন্য আমরা এ আইনটি সংশোধন করি। “ধর্ষণ করলে সেখানে যাবজ্জীবনের সাথে মৃত্যুদ- দিয়ে ইতোমধ্যে আমরা ক্যাবিনেটে সেই আইন পাস করে দিয়েছি। যেহেতু পার্লামেন্ট সেশনে নাই, আমরা এটা অধ্যাদেশ জারি করে দিচ্ছি।” তিনি বলেন, করোনাভাইরাস আরেকটি দুর্যোগ। কারণ আমরা প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা করি, আমাদের মনুষ্য সৃষ্ট দুর্যোগও মোকাবেলা করতে হয়। শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের দেশে বন্যা হবে, খরা হবে, ঘূর্ণিঝড় হবে, জলোচ্ছ্বাস হবে, অগ্নিকা- হবে। সেসব প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা করে আমাদের বাঁচতে হবে। প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষা করে দেশের সার্বিক উন্নয়ন করা এবং দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সেটাই আমাদের লক্ষ্য।
চুয়াডাঙ্গায় আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলনকক্ষে এক আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়। সভাপতিত্ব করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইয়াহ ইয়া খান। প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার। এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. আবু তারেক ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. জাহিদুল ইসলাম বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। আলোচনাসভায় স¦াগত বক্তব্য রাখেন জেলা দুর্যোগ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা খায়রুল আনাম। অন্যান্যের মধ্যে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপ-সহকারী পরিচালক আব্দুস সালাম, রেডক্রিসেন্ট ইউনিটের সেক্রেটারী শহিদুল ইসলাম শাহান ও ব্র্যাক কর্মকর্তা ফারুক আহমেদ বক্তব্য রাখেন।
জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার বলেন, সরকার ঘোষণা করেছে সচিবরা প্রত্যেককে নিজ এলাকায় দুটি করে বাড়ি তৈরি করে দেবে। চুয়াডাঙ্গা জেলায় পাবলিক সার্ভিস কমিশনের সচিব আছিয়া বেগম নিজ এলাকা দামুড়হুদায় দুটি বাড়ি নির্মাণ করে দিচ্ছেন। এ প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন করতে পারি আগামী ১ বছরের মধ্যে ঘর ছাড়া কেউ থাকবে না। জেলা পর্যায়ে কোয়ার্টার নির্মাণ করে গৃহহীনদের ঘরের ব্যবস্থা করা হবে। যার জমিও নাই, ঘর নাই এমন ১ হাজার ১০০ পরিবারকে ২ শতক করে জমি দিয়ে ঘর নির্মাণ করে দেয়া হবে। যাদের জমি আছে ঘর নাই, এমন ৯ হাজার ৬৫৪ জন পরিবারকে ঘর তৈরি করে দেয়া হবে। কাউকে পেছনে ফেলে এগুনো যাবে না। ২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজি বাস্তবায়ন করতে হবে। এজন্য সকল বিষয়ে মানুষকে জানাতে হবে। প্রথম পর্যায়ে ২০০ পরিবার এবং এবার ১৯৬ পরিবারকে দুর্যোগ সহনীয় ঘর তৈরি করে দেয়া হয়েছে।
আলমডাঙ্গা ব্যুরো জানিয়েছে, আলমডাঙ্গায় আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবসের আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার উপজেলা উপজেলা পরিষদ হলরুমে এ সভার আয়োজন করা হয়। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের ব্যবস্থাপনায় উপজেলা প্রশাসন দিবসটি উপলক্ষে সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা এনামুল হক। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. লিটন আলীর সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার শামসুজ্জোহা, খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোফাক্ষারুল হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম, সমবায় অফিসার আবু হাসেম, বিশিষ্ঠ ব্যবসায়ী মাহমুদুল হাসান চঞ্চল।
দামুড়হুদা অফিস জানিয়েছে, দামুড়হুদায় আন্তর্জাতিক প্রশমন দিবসের আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের সম্মেলনকক্ষে এ সভার আয়োজন করা হয়। দামুড়হুদা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমানের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশন ভূমি মো. মহিউদ্দিন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. মনিরুজ্জামান, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মশিউর রহমান, আব্দুল ওদুদ শাহ্ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ কামাল উদ্দিন। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা সাকি সালাম, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হোসনে জাহান ববি, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আশরাফ আলী প্রমুখ।
মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, এ উপলক্ষে মেহেরপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে এক আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক ড. মো. মুনসুর আলম খানের সভাপতিত্বে “দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাসে সুশাসন, নিশ্চিত করবে টেকসই উন্নয়ন” শীর্ষক আলোচনাসভায় বক্তব্য দেন জেলা পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলি, জেলা পরিষদেও চেয়ারম্যান গোলাম রসূল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক তৌফিকুর রহমান, জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা কাজী মো. লিয়াকত আলী, পৌর প্যানেল মেয়র শাহিনুর রহমান রিটন, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আব্দুল হালিম, যুগ্ম সম্পাদক অ্যাড. ইব্রাহিম শাহীন, জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদফতরের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক নাসিমা আখাতার, জেলা খাদ্য কর্মকর্তা আবদুল হামিদ, উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মীর জাকির হোসেন প্রমুখ। এসময় সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।
গাংনী প্রতিনিধি জানিয়েছেন, মেহেরপুরের গাংনীতে পালিত হয়েছে আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস। এ উপলক্ষে গতকাল মঙ্গলবার সকালে গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার সভাকক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মেহেরপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামান। উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরএম সেলিম শাহনেওয়াজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নিরঞ্জন চক্রবর্তী। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার আলা উদ্দীন, গাংনী প্রেসক্লাবের সভাপতি রমজান আলী, সাংবাদিক মাজেদুল হক মানিক, গাংনী প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ-উদ-দৌলা রেজা প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সরকারি বিভিন্ন দফতরের প্রধান, সাংবাদিকসহ শ্রেণি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More