চুয়াডাঙ্গায় মাদকাসক্ত ছেলের কাণ্ড

 টাকা চাওয়ায় বাবা-মাকে কুপিয়ে জখম

গায়ে আগুন দিয়ে ছেলের আত্মহত্যার চেষ্টা : পুলিশের সহযোগিতায় দেয়াল ভেঙে উদ্ধার
স্টাফ রিপোর্টার: মাত্র দুইশত টাকা চাওয়ায় বাবা মাকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করেছে মাদকাসক্ত ছেলে সোহেল। এ ঘটনার পর সোহেল ঘরে আগুন ধরিয়ে আত্মহত্যার অপচেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়। এলাকাবাসী ও পুলিশের সহযোগিতায় ঘরের দেয়ালের একাংশ ভেঙে সোহেলকে উদ্ধার করা হয়েছে। খবর পেয়ে জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করেন। পরে পুলিশ মাদকাসক্ত সোহেলকে আটক করে থানা হেফাজতে নেয়। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার বেলগাছি গ্রামের বকচরপাড়ায় এ ঘটনাটি ঘটে। পরে সোহেলের পিতা আশরাফুল ইসলাম ও মা শাবানা খাতুনকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
পারিবারিক ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বেলগাছি গ্রামের বকচরপাড়ায় আশরাফুল ইসলামের ছোট ছেলে সোহেল দীর্ঘদিন যাবত মাদকাসক্ত। সে রাজমিস্ত্রির কাজ করে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে সোহেল কাজ বাড়ি ফিরলে তার মা শাবানা খাতুন বাড়িতে কিছু বাজার বাবদ দুইশত টাকা চাই। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মায়ের সাথে খারাপ ব্যবহার করে। একপর্যায়ে সোহেল কোদাল দিয়ে তার মাথায় আঘাত করে এবং হেঁসো দিয়ে মাথায় কুপিয়ে জখম করে। এ সময় সোহেলের বাবা আশরাফুল ইসলাম প্রতিবাদ করলে তাকেও হেঁসো দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। পরে আশরাফুল ও তার স্ত্রী শাবানা খাতুন নিজেদের বাচাতে বাড়ির বাইরে বের হয়ে চিৎকার করলে প্রতিবেশিরা এগিয়ে আসে। পরে সোহেল নিজ কক্ষের ঘরের দরজা বন্ধ করে ঘরের আসবাবপত্রে আগুন ধরিয়ে আত্মহত্যার অপচেষ্টা চালায়। ঘরের মধ্যে থেকে ধোয়া বের হতে দেখে এলাকার লোকজন পুলিশের খবর দেয়। পরে পুলিশ ও এলাকাবাসীর সহযোগিতায় ওই কক্ষের দেয়ালের একাংশের ইট সরিয়ে ঢুকে সোহেলকে উদ্ধার করে। এতে অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পাই সোহেল। খবর পেয়ে চুয়াডাঙ্গা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) জাহাঙ্গীর আলম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। পরে সোহেলকে আটক করে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় নেয়া হয়। রাতেই সোহেলের বাবা-মা চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন।
চুয়াডাঙ্গা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) জাহাঙ্গীর আলম, বাজারের জন্য ছেলের নিকট তার মা দু’শত টাকা চাই। এতে সোহেল রাগান্তিত হয়ে তার মাকে হেঁসোর উলটা পিঠ দিয়ে মাথায় আঘাত করে। এ সময় তার বাবা ঠেকাতে গেলে তাকেও হেঁসো দিয়ে কুপিয়ে জখম করে সোহেল। পরে ঘরের দরজা বন্ধ করে আগুন ধরিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। খবর পেয়ে পুলিশ ও এলাকাবাসী তার ঘরের দেয়ালের একাংশ ভেঙে উদ্ধার করা হয়। অল্পের জন্য সোহেল প্রাণে রক্ষা পাই। তিনি আরও বলেন, সোহেল মাদকাসক্ত। এর আগে মাদক সেবনের জন্য সোহেল জেল খেটেছে। এ ঘটনায় আত্মহত্যা চেষ্টা ও মাদক সেবনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More