প্রার্থিতা প্রত্যাহার করছেন শরীফ হোসেন দুদু

চুয়াডাঙ্গা পৌর নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী থাকবেন কিনা তা নিয়ে আলোচনাসভায় সিদ্ধান্ত
স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির অন্যতম সদস্য শরীফ হোসেন দুদু পৌর নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন। দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীদের অন্যতম ছিলেন তিনি। মনোনয়ন না পেলেও তিনি কি মেয়র পদে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় থাকছেন? ক’দিন ধরেই এ প্রশ্ন ছিলো রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক মহলে। অবশেষে গতকাল এক বৈঠকে নেয়া সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে তিনি আজ বুধবার মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিতে পারেন।
শরীফ হোসেন দুদু ঘনিষ্ঠ একসূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ মেনে দেশের অধিকাংশ পৌর নির্বাচনেই বিদ্রোহী প্রার্থী থাকছেন না। দীর্ঘদিন ধরে পৌর নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হিসেবে শরীফ হোসেন দুদু গণসংযোগসহ নানা কর্মসূচি পালন করে শক্তিশালী প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় উঠে আসলেও দলের সিদ্ধান্ত মেনে তিনি প্রার্থিতা রাখবেন না। গতকাল অনুষ্ঠিত বৈঠকে যুবলীগের বেশ ক’জন নেতা উপস্থিত থেকে সর্বসম্মতিক্রমে এ সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করার পাশাপাশি নৌকা প্রতীকের প্রার্থীকে নির্বাচিত করার লক্ষ্যেও সম্মিলিতভাবে কাজ করার আহ্বান জানানো হয়। সংশ্লিষ্টসূত্র বলেছে, গতকাল সন্ধ্যায় চুয়াডাঙ্গা আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় চত্বরে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকনের উপস্থিতিতে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। শরীফ হোসেন দুদুর সভাপতিত্ব অনুষ্ঠিত বৈঠকে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ শামসুল আবেদীন খোকন। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার, যুগ্ম আহ্বায়ক জিল্লুর রহমান জিল্লু ও জেলা কৃষকলীগের সভাপতি আসাদুজ্জামান কবীর। সভাটি পরিচালনা করেন আশরাফুল ইসলাম। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাঈম পারভেজ সজল, কেদারগঞ্জ দোকান মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক নুর আব্বাস প্রমুখ।
প্রসঙ্গত: চুয়াডাঙ্গা পৌর নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাবেক মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, চুয়াডাঙ্গা পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পৌর কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আলম মলিক খোকন, চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি যুবলীগ সদস্য শরীফ হোসেন দুদু, বর্তমান মেয়র জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক ওবায়দুর রহমান চৌধুরী জিপুসহ কয়েকজন। প্রথমে রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটনকে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হলেও পরে তা বাতিল করে চুয়াডাঙ্গা পৌর আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত মেয়র প্রার্থীর তালিকায় থাকা দ্বিতীয় ব্যক্তি জাহাঙ্গীর আলম খোকনকে মনোনিত করে দল। এর প্রেক্ষিতে রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন যেমন প্রার্থিতা থেকে সরে দাঁড়ান, তেমনই ওবায়দুর রহমান চৌধুরী জিপুও প্রার্থী পেশ করেননি। তবে শরীফ হোসেন দুদুর প্রার্থিতা পেশ করা ছিলো। তার প্রার্থিতা যাচাই বাছাইয়ে বৈধতাও পায়। আগামী ১০ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রত্যাহারের সুযোগ রয়েছে। এরই মাঝে শরীফ হোসেন দুদু চূড়ান্ত প্রার্থী থাকবেন কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন উঠে। অবশেষে তিনি প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More