হাতকড়া খুলে পালানো আজিজুলকে গ্রেফতার করা হয় ঢাকায়

চুয়াডাঙ্গায় সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ্ আল-মামুন

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা আদালত চত্বরে পুলিশ বেষ্টনীর মধ্য থেকে হাতকড়া খুলে পালিয়ে যাওয়া হাজতি আজিজুল শেখকে (৩৯) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) একাধিক দল সমন্বিত অভিযান চালিয়ে ঢাকার ধামরাই থেকে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে তাকে গ্রেফতার করে। অভিযানে নেতৃত্ব দেন ডিবি’র এসআই সোহেল রানা, মো. শিহাব উদ্দীন, রাশিদুল হাসান ও এএসআই রমেন কুমার সরকার।

পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মামুন গতকাল শুক্রবার বেলা ১১টায় তার দফতরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান। আজিজুল শেখ ওরফে আশিকুল ওরফে আশিক গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর উপজেলার জলিরপাড় গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দা।

পুলিশসূত্রে জানা যায়, আজিজুল শেখের বিরুদ্ধে খুন-ডাকাতি, দস্যুতা, চুরিসহ ১৪টি মামলা রয়েছে। ২০২০ সালের ১৮ অক্টোবর আজিজুল চুয়াডাঙ্গার ঘুঘুডাঙ্গা গ্রামে একটি ডাকাতির ঘটনায় সন্দেহজনক আসামি হিসেবে গ্রেফতার হন। সেই থেকে তিনি কারাগারে ছিলেন। মামলায় জামিন শুনানির জন্য গত ১৬ অক্টোবর সকাল ১০টার দিকে তাকে জেলা কারাগার থেকে প্রিজনভ্যানে আদালত চত্বরে নেয়া হয়। কিন্তু আদালতে তোলার আগেই পুলিশ বেষ্টনীর মধ্যেই কৌশলে হাতকড়া খুলে আজিজুল শেখ পালিয়ে যান। ওই ঘটনায় আদালত পুলিশের তিন সদস্যকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনসে সংযুক্ত করা হয়। এছাড়া অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) আবু তারেক প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে জেলা পুলিশ।

পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মামুন সংবাদ সম্মেলনে বলেন, পলাতক আজিজুল শেখ আন্তঃজেলা অপরাধচক্রের সদস্য। চুয়াডাঙ্গা থেকে পালিয়ে পূর্বপরিচয়ের সূত্র ধরে ধামরাইয়ে ঘনিষ্ঠ একজনের কাছে আশ্রয় নেন। কিন্তু তার কাছে কোনো মুঠোফোন না থাকায় অবস্থান শনাক্ত করা যাচ্ছিলো না। পরে গোয়েন্দা তৎপরতার মাধ্যমে অবস্থান নিশ্চিত হয়ে অভিযান চালানো হয়। বৃহস্পতিবার বিকেলে তাকে গ্রেফতার করা হয়। সংবাদ সম্মেলনের সময় জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) আবু তারেক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আনিসুজ্জামান লালন, জেলা গোয়েন্দা শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলমগীর কবীর, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ১৬ অক্টোবর রোববার সকালে চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার ঘুঘুডাঙ্গা গ্রামে একটি ডাকাতির মামলায় কারাগারে আটক আসামি আজিজুল শেখসহ অন্য কয়েকজন আসামিকে নিয়ে আদালতের একটি প্রিজনভ্যান চুয়াডাঙ্গা আদালত প্রাঙ্গণে যায়। ওই গাড়িতে আসামিদের আদালতে পৌঁছে দেয়া হয়। গাড়ি থেকে নামার পরপরই আজিজুল কৌশলে হাতকড়া খুলে পালিয়ে যান। টানা পাঁচ দিন পলাতক থাকার পর আজিজুল ধামরাই থেকে ধরা পড়েন পুলিশের হাতে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More