ভোটে সন্তুষ্ট ইসি

স্টাফ রিপোর্টার: চতুর্থ ধাপে ৫৫টি পৌরসভার ভোটে নির্বাচনী সহিংসতায় একজন নিহত ও সাতটি ভোটকেন্দ্র বন্ধের বিষয়টি স্বীকার করে নির্বাচন কমিশন (ইসি) বলেছে, ‘আমরা এখন পর্যন্ত সন্তুষ্ট।’ গতকাল রোববার সন্ধ্যায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের কাছে ইসি সচিব হুমায়ুন কবীর খোন্দকার এ কথা জানান। ইসি সচিব বলেন, ‘৫৫টি পৌরসভার ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ হয়। পুরো দেশেই শান্তিপূর্ণভাবে ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘নরসিংদীর চারটি ভোটকেন্দ্রে কিছু অনিয়মের কারণে প্রিসাইডিং কর্মকর্তা সেখানে ভোট বন্ধ করে দেন। নোয়াখালীর সোনাইমুড়িতে একটি কেন্দ্রের ভোট বন্ধ করে দেয়া হয়। শরীয়তপুরের ডামুঢ্যায় দুটি কেন্দ্রের ভোট বন্ধ করা হয়। অর্থাৎ সাতটি কেন্দ্রের ভোট বন্ধ হয়। বাকি ৫০৩টি কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে।’ ইসি সচিব যোগ করেন, ‘রিটার্নিং কর্মকর্তারা নির্বাচন কমিশনকে প্রতি ঘণ্টায় যে প্রতিবেদন দিয়েছেন এবং গণমাধ্যমে যা দেখেছে কমিশন, তাতে আমাদের কাছে মনে হয়েছে, ভোট ভালো হয়েছে।’ চট্টগ্রামের পটিয়ায় দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর মধ্যে গোলাগুলিতে একজন নিহত হয়। এ বিষয়ে হুমায়ুন কবীর বলেন, ‘ঠিকই বলেছেন। পটিয়াতে ভোটকেন্দ্রের বাইরে প্রার্থীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে একজন মারা গেছেন। এটা নিঃসন্দেহে আমাদের জন্য দুঃখজনক। এটি ঘটুক আমরা কেউ প্রত্যাশা করি না। প্রার্থীদের মধ্যে যে মারামারি হয়েছে সেটা ভোটকেন্দ্রের বাইরে হয়েছে। এটি কেন্দ্রের ভেতরে ভোটগ্রহণে কোনো ধরনের প্রভাব ফেলেনি। ভোটগ্রহণ হয়েছে শান্তিপূর্ণভাবে।’ ইসি সচিব বলেন, ‘এটি হলো একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা। হঠাৎ করে হয়ে গেছে, একজন লোক মারা গেছে। কিন্তু যারা ভোট দেয়ার, তারা তো ভোটকেন্দ্রে যাবে। যে জায়গায় মারামারি হয়েছে, সেই জায়গায় ভোটাররা তো যাবে না।’ এ ঘটনার দায় কার? এর জবাবে সচিব বলেন, ‘যে খুন হয়েছে, যে দুই প্রার্থী মারামারি করেছে, এর দায় তাদের। কারণ, তারা নিজেরা মারামারি করে খুন হয়েছে। কিন্তু ভোটাররা যারা কেন্দ্রে এসেছেন, ল এনফোর্সিং এজেন্সি যারা ছিলেন, আমাদের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা যারা ছিলেন, তারা প্রত্যেকে রিপোর্ট দিয়েছেন যে, ভোট নেয়ার মতো পরিস্থিতি ছিল, সুষ্ঠু ছিল।’ তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রত্যাশা ছিল একটি প্রাণও যেন না ঝড়ে। প্রার্থীরা এত বেশি ইমোশনাল হয়ে যায়। ওই ভোট কেন্দ্রে আমাদের আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা ছিল। কেন্দ্রের বাইরে দুই প্রার্থীর মধ্যে ঝগড়া হয়। এতে একজন নিহত হন। ওই মুহূর্তে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ওই জায়গায় গিয়ে ইন্টারভেন্ট করার সুযোগ ছিল না, এটি আমাদের কাছে মনে হয়েছে।’ ভোটে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দায়িত্ব নিয়ে তিনি বলেন, ‘রিটার্নিং কর্মকর্তা যে রিপোর্ট দিয়েছেন, এতে আমার কাছে মনে হয়েছে যে, তারা তাদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করেছেন।’ ভোটে নির্বাচন কমিশন সন্তুষ্ট কিনা? উত্তরে ইসি সচিব হুমায়ুন কবীর খোন্দকার বলেন, ‘আমরা এখন পর্যন্ত সন্তুষ্ট।’

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More