মনিরুলের মায়ের ইন্তেকাল : মাথাভাঙ্গা পরিবারের শোক

বৃহস্পতিবার সকাল ০৮ টায় আল হেলাল স্কুল ময়দানে প্রথম নামাজে জানাজা

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা শান্তিপাড়ার সদালাপী পরোপকারী ধার্মীক নারী সালেহা বেগম ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না… রাজেউন)। আজ বুধবার (২৫ নভেম্বর) বিকেলে ঢাকায় নেয়ার পথে ফরিদপুরে শেষ নিশ^াস ত্যাগ করেন তিনি।
সালেহা খাতুন ছিলেন চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে কর্মরত হাজি রবিউল ইসলামের স্ত্রী এবং মাধ্যমিক শিক্ষার খুলনা বিভাগীয় উপ পরিচালকের কার্যালয়ে কর্মরত প্রধান সহকারী মনিরুল ইসলাম ও কামরুল ইসলামের মা। মনিরুল ইসলামের মায়ের আকস্মীক মৃত্যুতে দৈনিক মাথাভাঙ্গা পরিবার শোকাহত।
পারিবারিকসূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার তিনি প্রাতভ্রমণে বের হয়ে অসুস্থ বোধ করেন। বাড়ি ফিরে শয্যাগত হন। তাকে নেয়া হয় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে। বুধবার দুপুরে হাসপাতালে রক্ত দেয়া হয়। বেলা ২টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকায় নেয়ার পরমার্শ দেন। পারিবারিক উদ্যোগে দ্রুত অ্যাম্বুৃলেন্সযোগে ঢাকার উদ্দেশে নেয়া হয়। পথিমধ্যে ফরিদপুরে অসুস্থতা বেড়ে গেলে নেয়া নিকটস্থ হাসপাতালে। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। সন্ধ্যায় অ্যাম্বুলেন্সযোগে মৃতদেহ নিজ বাড়ির উদ্দেশে নেয়া হয়। মৃত্যুকালে সালেহা বেগমের বয়স হয়েছিলো আনুমানিক ৫৮ বছর। তিনি স্বামী, দু ছেলে মেয়েসহ বহু গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।
নিজেদের গ্রামের বাড়ি দামুড়হুদার বলদিয়ায় দাফন কাজ সম্পন্ন করা হবে। তার আগে বৃহস্পতিবার সকাল ৮ টায়  চুয়াডাঙ্গায় শান্তিপাড়ার আলহেলাল স্কুল ময়দানে প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। বুধবার রাত পৌনে ৮টায় মৃতদেহ নিয়ে অ্যাম্বুলেন্স শান্তিপাড়ার বাড়িতে পৌছুয। এরপরই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।  মনিরুল ইসলাম দৈনিক মাথাভাঙ্গা পরিবারের শুধু শুভানুধায়ীই নন, তিনি অকৃত্তিম বন্ধু। উন্নায়নে অন্যতম ধারকও বটে। মায়ের মৃত্যুতে দৈনিক মাথাভাঙ্গা সম্পাদক সরদার আল আমিন এক শোকবার্তায় মরহুমার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে শোক সন্তুপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। বলেছেন, মনিরুলের মা ছিলেন পর উপকারি নারী

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More