জীবননগরের কাটাপোলে সরকারি খাল থেকে মাটি উত্তোলন করে ইটভাটায় বিক্রি : ৫০ হাজার টাকা জরিমানা

জীবননগর ব্যুরো: জীবননগর উপজেলায় কাটাপোল গ্রামে সরকারি খাল থেকে অবৈধভাবে মাটি উত্তোলন করে ইটভাটায় বিক্রির দায়ে বাবুল আক্তার নামে এক ব্যক্তিকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী হাকিম ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম মুনিম লিংকনের নেতৃত্বে পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইনে অভিযুক্ত বাবুল আক্তারকে এ অর্থদ- দেন। দ-িত বাবুল আক্তারের বাড়ি জীবননগর উপজেলার বাঁকা ইউনিয়নের বাঁকা গ্রামের স্কুলপাড়ায়। তিনি ওই গ্রামের মৃত মানিক বিশ্বাসের ছেলে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, জীবননগর উপজেলার হাসাদাহ্ ইউনিয়নের কাঁটাপোল গ্রামের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া আইডিয়াল খাল পুনঃখননের জন্য জীবননগর স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি) বাবুল আক্তারের সমিতির সাথে চুক্তিবদ্ধ হন। চুক্তি মোতাবেক কাঁটাপোল গ্রামের বিলের মাঠ থেকে সুইচগেট পর্যন্ত ওই খাল ১২ ফুট চওড়া এবং ৪ ফুট গভীর করে খনন কাজ করবেন এবং খননের ওই মাটি খালের পাড় বেঁধে দেবেন। কিন্তু বাবুল আক্তার ওই চুক্তির প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে রাতের আঁধারে ১৫-২০ ফুট চওড়া ও ১০-১২ ফুট গভীর করে খনন করেন এবং খাল খননের ওই মাটি অবৈধভাবে ইটভাটায় বিক্রি করে আসছিলেন। এ ব্যাপারে অভিযোগ পেয়ে নির্বাহী হাকিম ও জীবননগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম মুনিম লিংকনের নেতৃত্বে পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত গতকাল সোমবার বিকেলে সেখানে অভিযান চালান। এ সময় আদালতের কাছে অভিযোগের সত্যতা মেলে এবং অভিযুক্ত বাবুল আক্তারও অপরাধের কথা স্বীকার করেন। এরই প্রেক্ষিতে আদালতের বিচারক এসএম মুনিম লিংকন বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইনে অভিযুক্ত বাবুল আক্তারকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। পরে দ-িত ব্যক্তি অর্থদ-ের ৫০ হাজার টাকা পরিশোধ করে ছাড়া পান। এসময় জীবননগর থানা পুলিশ আদালতকে সহায়তা করে।

এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কাঁটাপোল গ্রামের কয়েকজন কৃষক জানান, এলাকাবাসী বেশ কয়েকবার অভিযুক্তদের এ কাজে বাধা দিলেও তারা উল্টো কৃষি জমির মালিকদের ভয়ভীতি দেখিয়ে আসছে। গ্রামবাসীর অভিযোগ, সরকারি খালের পার্শ্ববর্তী ব্যক্তি মালিকানাধীন জমি থেকেও তারা রাতের আঁধারে মাটি কেটে ইটভাটায় বিক্রি করতেন। বাবুল আক্তার ইতোমধ্যে ওই খাল থেকে অন্ততঃ ১৫-২০ লাখ টাকার মাটি ইটভাটায় বিক্রি করেছেন। তারা কৃষি জমি রক্ষায় সংশ্লিষ্টদের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More