ছ’মিল নিজের জায়গায় কাঠ রাখতে না পারলে বন্ধ করে দেন

চুয়াডাঙ্গা জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার বলেছেন, স’মিলের কাঠ নিজের জায়গায় রাখতে না পারলে বন্ধ করে দেন। পাবলিক ন্যুইসেন্স সহ্য করা হবে না। ইটভাটার মাটি পবিহনের ফলে রাস্তা নষ্ট  হচ্ছে। যেখানে হচ্ছে জরিমানা করতে হবে এবং তাদের দিয়ে মাটি সরাতে হবে। নিয়মিতভাবে কাজটি করতে হবে। গতকাল রোববার বেলা ১০টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার এসব কথা বলেছেন।

জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. আবু তারেক, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সাজিয়া আফরীন ও পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকন উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ সাদিকুর রহমান, আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পুলক কুমার ম-ল, দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দিলারা রহমান, জীবননগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম মুনিম লিংকন, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সী আলমগীর হান্নান, জেলা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাড. বেলাল হোসেন ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু হোসেনসহ কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার সভায় আরও বলেন, অবৈধ যানবাহন চলা উচিত না। চেষ্টা করতে হবে অল্প অল্প করে বন্ধ করতে হবে। তাহলে পাবলিক গাড়িগুলো চলতে পারবে। সড়কের দু’ধারে ইট, বালি ও পাথর সরাতে হবে। সরকারি কলেজ কর্তৃপক্ষ সাইনবোর্ড দিয়ে উদ্যোগ নিতে পারে। নিজেরা চেষ্টা করতে হবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সদর এসিল্যান্ড এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেবেন। ১৭ মার্চ থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত জেলা পর্যায়ের সকল অনুষ্ঠানে বিভাগীয় কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতি বিজড়িত সরকারি কলেজ মাঠ ও কালেক্টরেট স্কুল মাঠে দুটি অনুষ্ঠান করা হবে। ২৭-২৮ মার্চ উন্নয়ন মেলা অনুষ্ঠিত হবে। ১৬ মার্চ বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় নিজেদের ছেলেমেয়েদের অংশগ্রহণ করাতে হবে। মাদরাসায় পড়াশুনা কিভাবে করানো হয় তা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা নিয়মিত তদারকি করবেন। মহামারী করোনা কোভিড-১৯ মোকাবেলায় সকলকে মাস্ক পরেই থাকতে হবে। পরিবহনে মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। মোবাইল কোর্ট নিয়মিতভাবে করতে হবে।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More